পরামর্শ

কাস্টমারের উপর উদ্যোক্তাদের ইচ্ছা চাপিয়ে দেওয়ার মারাত্নক ভুল 

জান্নাতুল ফেরদৌস 

প্রকাশিত: ১৮:৩৩, ১৮ আগস্ট ২০২২

কাস্টমারের উপর উদ্যোক্তাদের ইচ্ছা চাপিয়ে দেওয়ার মারাত্নক ভুল 

কাস্টমারের উপর উদ্যোক্তাদের ইচ্ছা চাপিয়ে দেওয়ার মারাত্নক ভুল 

প্রত্যেকের চিন্তা ভাবনা,চাহিদা,অনুভূতি,পছন্দ-অপছন্দ সবকিছুই একে অপরের থেকে আলাদা হয়ে থাকে।কাস্টমারের সাথে সম্পর্ক ভালো রাখতে একজন উদ্যোক্তাকেও এসব ব্যাপারে অনেক বেশি সতর্ক থাকতে হয়।

কাস্টমার যখন উদ্যোক্তার কাছ থেকে কোনো পণ্য নেয় তখন তার পছন্দ-অপছন্দের ভিত্তিতে যাচাই বাছাই করে তবেই নিয়ে থাকে।কিন্তু কিছু কিছু উদ্যোক্তারা আছেন যারা কাস্টমারের উপর নিজেদের ইচ্ছাকে চাপিয়ে দেন।  

ব্যাপারটা বিস্তারিত আলোচনা করি —

ধরুন আপনি হ্যান্ডপেইন্ট শাড়ির একজন নতুন উদ্যোক্তা। এখন একজন কাস্টমার আপনার কাছে কাস্টমাইজড অর্ডার দিতে চাইলো।কিন্তু আপনি দেখলেন যে কাজটা আপনার দ্বারা করা সম্ভব না।এখন আপনি ভাবছেন কাস্টমারকে না করে দিলে হয়তো সে আপনার কাছে আর নাও আসতে পারে।তো আপনি মিষ্টি মিষ্টি কথায় কাস্টমারকে ভুলিয়ে আপনি যা পারেন,তার মধ্যে থেকে একটা ডিজাইন সিলেক্ট করে নিলেন।

আপনার কাস্টমারটিও হয়তো দোদুল্যমানতার সাথে রাজি হয়ে গেলেন।কিন্তু তিনি যখন পণ্যটি হাতে পেলেন তখন শাড়ির ডিজাইনটি ছবির সাথে মিললো না।একেতো তিনি নিজের পছন্দের ডিজাইন আপনাকে দিয়ে করাতে পারেনি,আবার আপনি নিজে যেটা সিলেক্ট করে দিলেন সেটাও পারফেক্ট নয়।কাস্টমার স্বাভাবিকভাবেই আপনার উপর অপ্রসন্ন হবে এবং হয়তো আর কখনোই আপনাকে দিয়ে কাজটি করাবে না।

এই যে আপনি নিজের পছন্দ-অপছন্দ আপনার কাস্টমারের উপর চাপিয়ে দিলেন এটা কি আদৌ ঠিক হয়েছিল?মোটেও না।আপনার উচিত ছিল সরাসরি কাস্টমারকে বুঝিয়ে না করে দেওয়া।আর এটাও মাথায় রাখতে হবে যে যেহেতু আপনি একজন হ্যান্ডপেইন্টেড উদ্যোক্তা,তাই নিজের কাজে নিয়মিত চর্চার মাধ্যমে আপনার দক্ষ হয়ে ওঠা উচিত ছিল।

উদ্যোক্তা হিসেবে আপনি যখন বিজনেস সেক্টরে প্রবেশ করেন,তখন আপনার দক্ষতা এবং প্রেজেন্টেশন সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব বহন করে।এখন আপনার যদি নিজের কাজে দক্ষতা না থাকে, তাহলে আপনি শুরুতেই একটা বড়সড় ধাক্কা খাবেন।কারণ যদি কাস্টমাইজড করার মতো কাজ হয় এবং আপনি সেই অপশন রাখেন তাহলে কাস্টমার আপনার কাছে তার পছন্দমতো ডিজাইন আবদার করতেই পারেন। 

কিন্তু আপনার মুখের কথা এবং কাজের ধরন যদি দুই রকমের হয় তাহলে বিজনেসের শুরুতেই আপনার প্রতি কাস্টমারের ভরসা নষ্ট হয়ে যাবে আর এর বিরূপ প্রভাব পড়বে আপনার কাজের উপর।

এটা জানা কথা যে,একজন কাস্টমারের 'ওয়ার্ড অফ মাউথ' এর কারণে একজন উদ্যোক্তা আরো ১০ জন কাস্টমার পেতে পারেন।কিন্তু কখনো কোনোভাবে যদি কাস্টমার বিরক্ত হয় তাহলে আপনি অনেক নতুন কাস্টমার হারাবেন।

কিশোর ক্লাসিকস সিরিজের 'এমা' গল্পে দেখা যায় নায়িকা এমা তার বান্ধবী হ্যারিয়েটের উপর নিজের ইচ্ছা-অনিচ্ছা সবসময় চাপিয়ে দিয়েছে।যদিও এমার মনে হয়েছে যে সে যা করছে তা হ্যারিয়েটের ভালোর জন্য,তবু জীবন এবং বাস্তবতা সম্পর্কে অজ্ঞ এমা নিজের অহমিকা ভিত্তিক চিন্তাভাবনার উপর ভিত্তি করে যেভাবে হ্যারিয়েটের জীবনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা প্রতিবারই ভুল প্রমাণিত হয়েছে এবং একইসাথে হ্যারিয়েটের মানসিক যন্ত্রণার কারণ হয়েও দাঁড়িয়েছে।

মিঃ নাইটলি এমার এমন কাজে বিরক্ত হয়ে ভৎসর্না করলেও এমা নিজের ভুলকে ভুল মনে করেনি।তাই শুধু একবার নয়,বারবার হ্যারিয়েটের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত এমা নিয়েছে আর সবসময় তা ভেস্তে গেছে।এখানে অবশ্য ভুল হ্যারিয়েটেরও ছিল।কারণ সে সব সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য এমার উপর নির্ভর করতো।শেষপর্যন্ত তাদের বন্ধুত্বের সম্পর্কে কিছুটা শীতলতা চলে এসেছিল।

ঠিক এই কারণেই কোনো উদ্যোক্তার উচিত নয় কাস্টমারের পছন্দ-অপছন্দকে বাদ দিয়ে নিজের সুবিধার কথা ভাবা।আপনি যদি বিজনেসে নিজের পণ্যের ব্যাপারে দক্ষ না হন,তাহলে সবার আগে সময় নিয়ে নিজেকে দক্ষ করে গড়ে তুলুন।কারণ বিজনেসে আসার পর পরই সব বিষয়ে যে দক্ষ হতেই হবে,এমন কথা নেই।সময়ের সাথে সাথে কাজ করতে গিয়ে মানুষ অভিজ্ঞ হয়,দক্ষতা বিভিন্ন দিকে বাড়তে থাকে।

কিন্তু কিছু কিছু বিশেষ ক্ষেত্রে উদ্যোক্তাকে শুরু থেকেই দক্ষ এবং আত্মবিশ্বাসী থাকতে হয়।কিশোর ক্লাসিকস পড়লে উদ্যোক্তারা নিজেদের এরকম ছোট-বড় সমস্যার সুন্দর সমাধান করে ফেলতে পারবেন।

লেখকঃ ফ্রিল্যান্সার লেখক ইপ্রফিট এবং শিক্ষার্থী (মুমিনুন্নিসা সরকারি মহিলা কলেজ, ময়মনসিংহ)
 

সিনথিয়া 

সর্বাধিক জনপ্রিয়