সারাবিশ্ব

ইন্ডিয়াতে অনলাইন কেনাকাটায় আধিপত্য নিয়ে আসে ফ্লিপকার্ট 

অনুপমা সরকার

প্রকাশিত: ১৬:৪৬, ১৬ জুন ২০২২; আপডেট: ১৬:৫০, ১৬ জুন ২০২২

ইন্ডিয়াতে অনলাইন কেনাকাটায় আধিপত্য নিয়ে আসে ফ্লিপকার্ট 

ইন্ডিয়াতে অনলাইন কেনাকাটায় আধিপত্য নিয়ে আসে ফ্লিপকার্ট 

ফ্লিপকার্ট হচ্ছে ইন্ডিয়ান ই-কমার্স কোম্পানি যা অ্যামাজনের পর দ্বিতীয় বৃহত্তম কোম্পানি। ফ্লিপকার্টের শুরু হওয়ার পর থেকে ইন্ডিয়ায় অনলাইনে কেনা কাটার ব্যপক পরিবর্তন আসে। 

২০০৭ সালে আইআইটির দুইজন প্রাক্তন গ্রাজুয়েট শচীন বানসাল এবং বিন্নী বানশাল ফ্লিপকার্ট শুরু করেন।  ফ্লিপকার্ট শুরুর পূর্বে দুইজনে অ্যামাজনে কর্মরত ছিলেন।  শুরুর দিকে শুধু বই বিক্রি করেছিল কিন্তু সময়ের সাথে সাথে তারা অন্যান্য পণ্য যেমন ইলেক্ট্রনিক্সসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য নিয়ে আসে। প্রথমদিকে তারা ওয়ার্ড অব মাউথের মাধ্যমে প্রচার করা শুরু করেন এবং জন উড রচিত লিভিং মাইক্রোসফট টু চেঞ্জ দ্যা ওয়ার্ল্ড বইটি বিক্রি কররে সক্ষম হোন। 

২০১০ সালে দিকে তারা সিডি,  ডিভিডি,  কম্পিউটার, কম্পিউটার ব্যাগ,  হেডফোন,  পেনড্রাইভ,  বিভিন্ন ধরনের মোবাইল ফোনসহ আরও অনেক প্রোডাক্ট নিয়ে আসে। এখন  বই, জামাকাপড়,  ইলেকট্রনিকস পণ্য এর  পাশাপাশি বাড়ির নিত্য প্রয়োজনীয় সকল জিনিস পত্র পাওয়া যায়। অনলাইনে মুভির টিকেট বুকিং থেকে শুরু টিকেট কেনারও সুযোগ রয়েছে।

ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড, নেট ব্যাংকিং এবং ক্যাশ অন ডেলিভারি সিস্টেমও রয়েছে।  ক্রেতারা যেকোনো মাধ্যমেই বিল পরিশোধ করতে পারে। ফ্লিপকার্ট অনলাইন স্টোরের এ্যাড্রেস হচ্ছে  https://www.flipkart.com/

শচীন বানসাল এবং বিন্নী বানসাল তাদের নিজেদের ৪০০,০০০ রুপি দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন। ২০০৯ সালের পর থেকে কোম্পানিটি বিনিয়োগ পেতে শুরু করেন। 
২০১৮ সালে মার্কিন কোম্পানি ওয়ালমার্ট ১৬ বিলিয়ন ডলারে  ৭৭% শেয়ার কিনে নিয়েছিলেন।  ২০১৮ সালে কল্যাণ কৃষ্ণমূর্তি ফ্লিপকার্টের সিইও হিসেবে দ্বায়িত্ব নেন৷ এর হেড অফিস হচ্ছে কর্নাটকের ব্যাংঙ্গালোরে।  

ফ্লিপকার্টের সহযোগী সংস্থাগুলোর মধ্যে মিন্ট্রা, ফোনপে, এক্ট্রা, জেভস, ক্লিয়ারট্রিপ। এই সংস্থাগুলোর মাধ্যমে তারা তাদের ব্যবসা আরও সম্প্রসারণ করেন যা ফ্যাশন, অনলাইন পেমেন্ট,  কুরিয়ার সার্ভিস,  ট্রাভেল সহ সেক্টরগুলোতে অংশগ্রহণ করেন। ফলে তাদের ব্যবসা ক্রমশ বৃদ্ধি পেতে থাকে।  

২০১৪ সালের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ফ্লিপকার্ট একটি জটিল ব্যবসায়িক কাঠামোর  মাধ্যমে কাজ করছিল যার মধ্যে নয়টি অর্গানাইজেশন অন্তর্ভুক্ত ছিল এর মধ্যে কিছু অর্গানাইজেশন সিংগাপুরে আর কিছু ইন্ডিয়ায় নিবন্ধিত ছিল। ফ্লিপকার্ট প্রাইভেট লিমিটেড যা সিংগাপুরে নিবন্ধিত এবং সিংগাপুরের নিবন্ধিত কোম্পানিটি বাকি আটটি কোম্পানির মালিক। 

২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে ফোর্বসে  প্রকাশিত হয়, এই দুই প্রতিষ্ঠাতা ইন্ডিয়ার সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তির তালিকায় প্রবেশ করেন এবং প্রত্যেকে ১.৩ বিলিয়ন ডলারের সাথে ৮৬ তম অবস্থানে আত্মপ্রকাশ  করেন।  

২০১৬ সালের এপ্রিলে, শচীন বানসাল এবং বিন্নী বানসালকে  টাইম ম্যাগাজিনে বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যাক্তির তালিকায় নাম দেওয়া হয়েছিল।

সোর্স: https://en.wikipedia.org/wiki/Flipkart


  


 

সিনথিয়া

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বাধিক জনপ্রিয়