সারাবিশ্ব

মাইক্রোসফটের ইতিকথা

অনুপমা সরকার

প্রকাশিত: ১৬:১৯, ১৭ জুন ২০২২; আপডেট: ১৬:২৫, ১৭ জুন ২০২২

মাইক্রোসফটের ইতিকথা

মাইক্রোসফটের ইতিকথা

কম্পিউটার আবিষ্কারের সাথে সাথে মানুষের জীবনকে সহজ করে দেয় এবং গোটা বিশ্বকে হাতের মুঠোয় এনে দেয় প্রযুক্তির মাধ্যমে।  প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে অনেক অনেক  জটিল বিষয়গুলো খুব সহজেই সমাধান করা যায়। 

প্রতিদিন অনেক নতুন নতুন ডিভাইস তৈরি হচ্ছে, যা মানুষকে সাফল্যের সর্বোচ্চ শিখরে পৌঁছে দিয়েছে আমাদের দৈনন্দিন জীবন পূর্বের চেয়ে অনেক বেশি সহজতর হয়েছে।   

মাইক্রোসফট একটি আমেরিকান কোম্পানি যা কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার উৎপাদন করে। মাইক্রোসফটের হেড অফিস আমেরিকার ওয়াশিংটনে অবস্থিত। এদের মধ্যে জনপ্রিয় সফটওয়্যারের উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম,  মাইক্রোসফট অফিস স্যুট, ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার,  ইডেজ ওয়েব ব্রাউজার। 

১৯৭৫ সালের ৪ ঠা এপ্রিল  দুই বন্ধু বিল গেটস এবং পল অ্যালেন এর হাত ধরে যাত্রা শুরু করে। মাইক্রোসফট নাম টি পল অ্যালেনের দেওয়া, মাইক্রোকম্পিউটার থেকে মাইক্রো আর সফটওয়্যার থেকে সফট শব্দটি এসেছে। বিল গেটস হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে আর পল অ্যালেন ওয়াশিংটন স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার সায়েন্সে ভর্তি হয়। তারা তাদের টেকনোলজি স্কিল কাজে লাগিয়ে ব্যবসা করার চিন্তা করে।

১৯৭৫ সালে পপুলার ইলেকট্রনিকস ম্যাগাজিনে প্রকাশিত এমআইটিএস অ্যাল্টেয়ার ৮৮০০ নিয়ে যা পল অ্যালেন দেখে। পল  অ্যালেন এবং বিল গেটস দুইজনে এর জন্য বেসিক ইন্টারপ্রেটার তৈরি করতে পারত। তারা এমআইটিএসকে প্রস্তাব দেয় এটির জন্য এবং এমআইটিএস অনুমতি দেয়।  তারা দুইজনে এটি বানানোর কাজে লেগে গেল৷ ১৯৭৫ সালের মার্চ মাসে  তারা এমআইটিএসের সামনে এটি প্রদর্শন করে এবং কোন সমস্যা ছাড়াই কাজ করলো। 

এমআইটিএস এটি ডিস্ট্রিবিউট করতে রাজি হলো এবং নাম দিল অ্যাল্টেয়ার বেসিক। এভাবেই বিল গেটস এবং পল অ্যালেন মাইক্রোসফট প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে মাইক্রোসফট এর প্রেসিডেন্ট এবং সিইও হচ্ছে সত্য নাদেলা।

১৯৮৬  সালের দিকে কোম্পানি প্রথম  আইপিওতে সুযোগ পায় যা কোম্পানির শেয়ারের মূল্য কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেয়। মাইক্রোসফট অপারেটিং সিস্টেমের উপর ভিন্নতা নিয়ে আসে এর ফলে আরও অনেক  কর্পোরেট কোম্পানিগুলোর শেয়ার  কিনে নেয়। সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ ২০১৬ সালে লিঙ্কডইন ২৬.২ বিলিয়ন ডলার আর ২০১১ সালে স্কাইপ টেকনোলজিসে ৮.৫ বিলিয়ন ডলার। 

২০১৫ সালের ডাটাবেইজ অনুযায়ী  মাইক্রোসফট আইবিএম পিসি কম্পিউটারে অপারেটিং সিস্টেম এবং অফিস সফটওয়্যার  স্যুট মার্কেটে আধিপত্য বিস্তার করে তবে   অ্যান্ড্রয়েডের  কাছে অপারেটিং সিস্টেমের বেশিভাগ অংশ হারিয়েছে।  এছাড়া  ডেক্সটপ,  ল্যাপটপ,  ট্যাব, গ্যাজেট,  সার্ভারের জন্য বিভিন্নধরনের সফটওয়্যার,  ভিএস ভিজিয্যুয়াল স্টুডিও, বিং, ক্লাউড কম্পিউটিং নিয়ে আসে।

২০১৪ সালে, সত্য নাদেলা সিইও হিসেবে দ্বায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে কম্পিউটারের হার্ডওয়্যারের উপর এবং পরবর্তীতে ক্লাউড কম্পিউটিং এর উপর জোর দেন যা একটা পদক্ষেপ কোম্পানির শেয়ারগুলোকে সর্বোচ্চ মূল্যে পৌঁছাতে সাহায্য করে।  

২০২০ সালের হিসাব অনুযায়ী,  মাইক্রোসফট বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ ব্রান্ড ভ্যালুয়েশনে রয়েছে। কোম্পানির এ্যাড্রেসঃ https://www.microsoft.com

সোর্সঃ https://en.wikipedia.org/wiki/Microsoft


 

সিনথিয়া

সর্বাধিক জনপ্রিয়